Saturday, May 7, 2011

ফিন্যান্স: Present Value ও Future Value

1 comments
“ফিন্যান্স দিয়ে কি হবে? এত কঠিন কঠিন সব অংক। বাজে, একদম বিশ্রী একটা সাবজেক্ট।“ – এটা আমারই কথা। আমি প্রথমে বুঝতাম না ফিন্যান্স দিয়ে কতকিছু করা যায়। এখনও যে বুঝি, তা নয়। তবে আগের চেয়ে কিছুটা বেশি বুঝি। আমার উপলব্ধিটুকু শেয়ার করতেই আমার এই লেখা।

ফিন্যান্সের একটা কথাতে বেশ যুক্তি আছে। আজকের ১০০টাকা আগামীকালের ১০০টাকার সমান নয়। কারণ অর্থের মূল্য বাড়তে কমতে পারে। আমাদের বাবা-মারা অনেক সময় গল্প শোনান – “জানিস, আমাদের আমলে ৫ টাকা দিয়ে খাসি পাওয়া যেত। ১ টাকা দিয়ে পুরো সপ্তাহের বাজার হয়ে যেত।” আচ্ছা, আপনাকে যদি আজকে ১ টাকা দিয়ে বলা হয় “যা, বাজার করে নিয়ে আয়” তাহলে কি বাজার করতে পারবেন? না। বাজারের জাল ব্যাগ কিনতেই ১ টাকা ফুরিয়ে যাবে!

তার মানে ৪০-৫০ বছর আগের ১ টাকা কিন্তু আজকের ১ টাকার সমান নয়। এজন্যই মানুষ জানতে চায় যে “আজকে যদি আমার পকেটে ১০০ টাকা থাকে তাহলে ৫ বছর পরে এটার মূল্য কত হবে?” এই প্রশ্নের জবাব দিতে পারে – ফিন্যান্স। ফিন্যান্সে প্রেজেন্ট ভ্যালু এবং ফিউচার ভ্যালু নামে গুরুত্বপূর্ণ দুটি “অস্ত্র” আছে। আমরা এগুলোর ব্যবহার শিখতে পারলে এই প্রশ্নের উত্তর জানতে পারবো।

Future Value (ফিউচার ভ্যালু)


মনে করুন আজ থেকে ১০-২০ বছর পরে আপনি বাচ্চা কাচ্চার বাবা/মা হবেন। তখন আপনার সন্তানদেরকেও তো একইভাবে গল্প শোনাতে হবে, “জানিস আমাদের আমলে চাল পাওয়া যেত...”। এজন্য আপনার ফিউচার ভ্যালু শেখা দরকার, পরীক্ষায় পাশ করার জন্য নয় কিন্তু! ;-)

নাম থেকেই বোঝা যাচ্ছে Future Value (FV) দিয়ে ভবিষ্যতের মূল্য বের করা যাবে। আজকে আপনার কাছে ১০০ টাকা থাকলে তা ৩ বছর পরে কত হবে – সেটা বের করতে লাগবে ফিউচার ভ্যালু।
Typical Inflows and Outflows in Projects, Investment




আচ্ছা, এখন একটা উদাহরণ হয়ে যাক। ঘাবড়াবার কিছু নেই, পরে আবার এটির ব্যাখ্যা করবো। রিল্যাক্স!

উদাহরণ ১: আপনি একটি ব্যাংকে এ্যাকাউন্ট খুলতে গেলেন। গিয়ে দেখলেন সেখানকার সুদের হার (interest rate) হলো ১০%। আপনি ১০০০ টাকা দিয়ে এ্যাকাউন্ট খুলতে চাচ্ছেন। কিন্তু আপনার জানতে ইচ্ছে করছে যে ৩ বছর পর আপনার এ্যাকাউন্টে সুদসহ কত টাকা জমা থাকবে।

সমাধান:
১ম বছর শেষে FV = ১০০০ টাকা X (১+০.১০) = ১১০০ টাকা
২য় বছর শেষে FV = ১০০০ টাকা X (১+০.১০) X (১+০.১০) = ১২১০ টাকা
৩য় বছর শেষে FV = ১০০০ টাকা X (১+০.১০) X (১+০.১০) X (১+০.১০) = ১৩৩১ টাকা

তাহলে- পেয়ে গেলেন! আজকে ঐ ব্যাংক এ্যাকাউন্টে ১০০০ টাকা জমা রাখলে ৩ বছর পর আপনি পাবেন ১৩৩১ টাকা।

দেখুন, আমরা জানতে চাইছি ভবিষ্যতে বা ফিউচারে আমাদের ১০০০ টাকার মূল্য কত হবে, তাইতো? এজন্য আমরা ফিউচার ভ্যালুর সূত্র ব্যবহার করবো।

এখানে লক্ষ্য করুন, ৩য় বছরের FV নির্ণয় করতে গিয়ে (১+০.১০) অংশটিকে তিনবার গুন করেছি:

৩য় বছর শেষে FV = ১০০০ টাকা X (১+০.১০) X (১+০.১০) X (১+০.১০)

= ১০০০ টাকা X (১+০.১০)
= ১৩৩১ টাকা

তাহলে আমরা একটা সূত্র বের করি:


n = যততম বছরের FV আমরা বের করবো
PV = যেটা প্রশ্নে দেয়া আছে, আজকে/বর্তমানে টাকার মূল্য
i = interest rate (সুদের হার), দশমিকে কনভার্ট করে দিতে হবে। যেমন:
FV = nতম বছরে টাকার মূল্য (ভবিষ্যতে টাকার মূল্য কত হবে)

Present Value (প্রেজেন্ট ভ্যালু)


ফিউচার ভ্যালুর মতই প্রেজেন্ট ভ্যালু আরেকটি অস্ত্র। এটি দিয়ে ভবিষ্যতের কোনো টাকার মূল্য আজ কত হবে তা বের করা যায়।

আমরা একটু আগেই ফিউচার ভ্যালুর সূত্র দেখলাম। ফিউচার ভ্যালুর সূত্র থেকেই কিন্তু আমরা প্রেজেন্ট ভ্যালুর সূত্র বের করতে পারি:


উদাহরণ ২: আপনি ৫ বছর পর একটি ল্যাপটপ কিনতে চান যার মূল্য ৩০,০০০ টাকা। আপনি আজকে ব্যাংকে কত টাকা রাখলে ৫ বছর পর ৩০,০০০ টাকা পাবেন? (ব্যাংকে সুদের হার ১০%)

সমাধান:



অর্থাৎ আপনি যদি এক্ষুণি গিয়ে ব্যাংকে ১৮,৬২৮ টাকা জমা রাখেন তাহলে ৫ বছর পর একটি ল্যাপটপের মালিক হতে পারবেন!
রেফারেন্স: ক্লাস লেকচার, শামসুল আরেফিন স্যার, প্রভাষক, ফিন্যান্স বিভাগ, ঢাকা সিটি কলেজ, ঢাকা।
Continue reading ...
 

Blogroll

Translate This Blog

Copyright © আদনানের ব্লগ Design by BTDesigner | Blogger Theme by BTDesigner | Powered by Blogger