Sunday, April 28, 2013

উবুন্টুতে ল্যাপটপ ঠান্ডা রাখার উপায়+ফাস্টও হবে

1 comments
আমি আমার এইচপিমিনি ল্যাপটপটিতে উইন্ডোজ ৭ এর পাশাপাশি পেন ড্রাইভ দিয়ে উবুন্টু (এবং Xubuntu, Lubuntu, Mint) চালাই। কিন্তু একটা ব্যাপার লক্ষ্য করতাম। উইন্ডোজ চালালে যতটা না ল্যাপটপ গরম হয়, তার চেয়ে বেশি গরম হয় উবুন্টু চালালে। ব্যাপারটা আমাকে বেশ ভাবাতো। ভাবতাম, উবুন্টু চালিয়ে  কম্পিউটারের ক্ষতি হচ্ছে না তো? তবে নেটে সার্চ দিয়ে এরকম কোন ক্ষতির খবর পেলাম না।

কিন্তু আর যাই হোক, ল্যাপটপ এতটা গরম হওয়া তো ভাল কথা নয়। মাঝে মাঝে গরম হয়ে এমন অবস্থা হত যে টাচপ্যাডে ছুঁলে ভয় লাগতো। কিন্তু কয়েকদিন আগে এর একটা সমাধান পেলাম। তাই সমাধানটা শেয়ার করছি।

ল্যাপটপ গরম হবার কারণ


আসলে ল্যাপটপ গরম হয় এর কারণ হচ্ছে হার্ডডিস্ক বেশি ব্যবহার হওয়া। পেনড্রাইভ থেকে উবুন্টু চালালেও এর Swap file settings এর কারণে বিভিন্ন তথ্য র‍্যামে না রেখে হার্ডডিস্কে রাইট হয়। বার বার হার্ডডিস্ক এ্যাক্সেস করার কারণে এটি গরম হয়ে যায়। এই Swap সেটিংস কমিয়ে একটি পর্যায়ে নিয়ে আসলে তখন হার্ডডিস্ক কম এ্যাক্সেস হবে এবং গরমও কম হবে। সোয়াপ সেটিং কমিয়ে আমি দেখেছি, উবুন্টু চালালে উইন্ডোজের চাইতেও কম গরম হয়।
(Swap সেটিংসকে আদুরে ভাষায় Swappiness ও বলা হয়।)

স্লো হবার কারণ

আরেকটি জানার বিষয় হল হার্ডডিস্কের গতি র‍্যামের চাইতে কম। র‍্যামকে এমনভাবেই তৈরি করা হয়েছে যাতে এতে খুব দ্রুত তথ্য সংরক্ষণ ও পরিবর্তন করা যায়।

সোয়াপ সংরক্ষিত থাকে হার্ডডিস্কে। তাই সোয়াপ বেশি ব্যবহৃত হলে উবুন্টু স্লো কাজ করে। সোয়াপ কম ব্যবহৃত হলে র‍্যামে বেশিরভাগ কাজ হবে । এতে কম্পিউটার ফাস্ট কাজ করবে।


সমাধান

প্রথমে আসুন দেখে নিই আপনার বর্তমান সোয়াপ সেটিংস কত সেট করা আছে
Ctrl+Alt+T চেপে টার্মিনাল ওপেন করুন।এখন নিচের কমান্ডটি টাইপ করে এন্টার চাপুন:
cat /proc/sys/vm/swappiness

60 দেখানোর কথা। এই ভ্যালুটি ৬০ দেয়া অযৌক্তিক, তারপরও এটি ডিফল্ট হিসেবে সেট করা থাকে।


এখন টার্মিনালে (অথবা Alt+F2 চেপে) রান করুন:
gksudo gedit /etc/sysctl.conf

আপনি যদি Xubuntu, Lubuntu, Kubuntu বা অন্য লিনাক্সে এটি ট্রাই করতে চান তাহলে gedit এর জায়গায় আপনার টেক্সট এডিটরের নাম দিন (যেমন: Lubuntu হলে leafpad)।

যে টেক্সট ফাইলটি ওপেন হবে তার একদম শেষে গিয়ে নিচের লাইনগুলো যোগ করে দিন এবং সেভ করুন:
# Decrease swap usage to a workable level
vm.swappiness=10
উপরে 10 এর জায়গায় কি হবে সেটা দেখুন:
এখন, আপনার র‍্যাম যদি ১গিগাবাইট বা তার বেশি হয় তাহলে 10 ই রাখুন
আর ১ গিগাবাইটের কম হলে 5 দেয়া উচিৎ।

এখন সেভ করে বেরিয়ে আসার পর রিস্টার্ট করুন। আপনার ল্যাপটপ এখন অনেক দীর্ঘ সময় ঠাণ্ডা থাকবে এবং অনেক প্রোগ্রাম চালালেও আগের মত স্লো হবে না।

আরেকটা ছোট টিপস

যদি আপনার ল্যাপটপ কুলার না থেকে থাকে বা কেনার সামর্থ্য বা ইচ্ছা না থাকে তাহলে একটা কাজ করতে পারেন। যখন বাসায় ল্যাপটপ ব্যবহার করেন তখন নিশ্চয়ই আপনার ধারেকাছে অনেক বই থাকে। একই সাইজের দুটি বই নিয়ে ল্যাপটপের দুপাশে দুটি নিয়ে তার উপর ল্যাপটপ বসান। এতে ল্যাপটপ ঠাণ্ডা থাকবে।

আর ল্যাপটপের বাতাস বের হবার জায়গা (Air vent) যেন ঢাকা না পড়ে যায় সেদিকে খেয়াল রাখবেন।

মনে রাখবেন, আপনার মাথা ঠাণ্ডা রাখার জন্য ল্যাপটপের মাথা (থুক্কু বডি) ঠাণ্ডা রাখা জরুরী! :-)

রেফ:
https://sites.google.com/site/easylinuxtipsproject/first
Continue reading ...
 

Blogroll

Translate This Blog

Copyright © আদনানের ব্লগ Design by BTDesigner | Blogger Theme by BTDesigner | Powered by Blogger